,

ময়মনসিংহে ঘাতকের বন্ধু পপি হত্যার তদন্তকারী অফিসার

সারা বাংলা ডেস্ক,বাংলা সময় টুয়েন্টিফোর ডটকম , স্টাফ রিপোটার, ময়মনসিংহ থেকে বদরুল আমিন : প্রবাসীর স্ত্রীকে ফুসলীয়ে ৬ লাখ টাকা নিয়ে ময়মনসিংহে ২৭২, চরপাড়া বাইলেন এলাকার জনি (৩৫) ও তার সহযোগীরা মিলে অমানুষিক ভাবে মানুষিক যন্ত্রনা দিয়ে মৃত্যুর জন্য প্ররোচিত করা ও বিভিন্ন ভাবে নির্যাতিত করার পর গত ৭ মার্চ সকাল ১১ টায় চরপাড়াস্থ বউবাজারে রাসেলের বাসায় ভাড়াটিয়া পপির (২৬) টানানোর লাশ পাওয়া গেছে। পপি বহুবার তাকে নির্যাতনের ঘটনায় কোতোয়ালী মডেল থানা পুলিশের স্বরনাপন্ন হলে এস আই তাজুল তার কাছ থেকে জনি বিরুদ্ধে অভিযোগ লিখিয়ে নিয়ে কোন ব্যবস্থা নেননি। পরবর্তী সময়ে পপি তাকে নির্যাতনের ঘটনায় থানায় গিয়েছেন ততবারই তাজুল তাকে চালান দিবে বলে হুমকী দিয়ে বিদায় করেছে। পপি তার ভাইদের জানিয়েছে, পুলিশ কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় ও জনির অত্যাচারে পপি মৃত্যু হয়েছে তার পরিবার ও এলাকাবাশী মনে করে।

এলাকাবাসী জানিয়েছে, ঘটনার দিন জনির বাসায় পপিকে হত্যা করা হয়। পরে জনি ও তার তিন বন্ধু মিলে পপির দেহ টেনে হেছরে পপির থাকা ভাড়া বাসায় লাশ জুলিয়ে রাখা হয়। জনি চর পাড়া এলাকার পদ্যা ডায়াগনস্টিকের মালিক। পপির একাধিক অভিযোগ পুলিশ ও জনি আপোষনামা বানিয়ে মেয়ের সাথে ব্লাকমিল করার কথাও শোনা যাচ্ছে। চর পাড়ার অনেকে জানিয়েছে এস আই তাজুল ও জনি বিভিন্ন সময় চর পাড়া এলাকায় বন্ধুর ম্ত চলাফেরা করতো।

এলাকাবাসী জানিয়েছে, ঘটনার দিন জনি একাধিকবার ফোন করে পপিকে তার বাসায় নিয়ে যায়। পরে জনির নেয়া ৬ লাখ টাকা পপি দাবী করলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এসময় জনি, তার স্ত্রীসহ আরো ৪/৫ জন মিলে তাকে অমানুষিক নির্যাতন করে হত্যা করে। নির্যাতনে পপির হাত ভেংগে গিয়েছিল বলে প্রত্যদশীরা জানান। এছাড়াও নিহতের শরিলে আঘাতের অনেক চি‎হ্ন রয়েছে বলে জানা গেছে। এস আই তাজুল খুনে অভিযোক্ত জনির বন্ধু হওয়ায় সুরতহাল রিপোর্টে আঘাতের চি‎হ্ন উল্লেখ করেনি বলে বাদীর অভিযোগ।

মামলার বাদি নিহতের ভাই আলামিন জানান, পুলিশ তাকে তারাহুরা করে বার বার ফোনে ও লোক পাঠিয়ে ডেকে নিয়ে তাদের কম্পিউটারে টাইপ করে স্বার নিয়ে মামলা রুজু করেন। পরে তিনি আরেকটি অভিযোগ দায়ের করেন। এতে জনি, জনির স্ত্রী শোভা, জুয়েল ও আরজুকে আসামী করা হয়। এ রিপোর্ট লিখা সময় পর্যন্ত পুলিশ কাউকে আটক করেনি।

বাংলা সময় টুয়েন্টিফোর ডটকম

এ জাতীয় আরো সংবাদ


ফেসবুকে আমরা

ফেসবুকে আমরা