,

মাদকের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চাইলে তাদের সুযোগ দেয়া হবে – আইজিপি

সারা বাংলা ডেস্ক : বাংলা সময় টোয়েন্টিফোর ডটকম;
সিরাজগঞ্জ থেকে শিমুল সরকার:-রোদ-বৃষ্টি ঝড় উপেক্ষা করে দেশের মানুষের নিরাপত্তায় কাজ করছে পুলিশ। সেই সাথে যে নারীদেরকে একদা শুধুমাত্র গৃহকর্মে নিয়োজিত থাকতে হতো সেই নারীরাই এখন দেশের মানুষের শান্তি নিরাপত্তা নিশ্চিত করনে যুগান্তকারী ভূমিকা রেখে চলেছেন। বাংলাদেশ নারী পুলিশই তার প্রকৃত দৃষ্টান্ত। যে কারণে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। আমরা চাই দেশের মানুষ শান্তিতে ঘুমাক, আমরা জেগে থেকে তাদের নিরাপত্তা দেব।’

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ পুলিশ লাইন্সে মহিলা পুলিশ ব্যারাক ও বঙ্গবন্ধুর ছবিসংবলিত ভাস্কর্য ‘স্বোপার্জিত পতাকা’ এর উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সাথে কথোপকথনে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী এসব কথা বলেন।

ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, পুলিশের একার পক্ষে সব অপরাধ দমন করা সম্ভব নয়। মাদক নির্মূলে রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ সাংবাদিক, শিক্ষক, ধর্মীয় নেতা এবং সব শ্রেণিপেশার মানুষের সহযোগিতায় প্রয়োজন।

আইজিপি বলেন, আমরা জিরো টলারেন্স নীতিতে মাদক নির্মূল অভিযান শুরু করেছি। মাদকের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চাইলে তাদের সুযোগ দেয়া হবে। কিন্তু যারা এখনও এ কাজে লিপ্ত রয়েছেন তারা যত প্রভাবশালীই হোন না কেন তাদের আইনের আওতায় আসতেই হবে।

এর আগে তিনি পুলিশ লাইন্সে গণপূর্ত অধিদফতরের অর্থায়নে সাড়ে ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নবনির্মিত মহিলা পুলিশ ব্যারাক ও সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তীর পরিকল্পনায় বঙ্গবন্ধুর ছবিসংবলিত ভাস্কর্য ‘স্বোপার্জিত পতাকা’ এর উদ্বোধন করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি এম খুরশীদ হোসেন, আরএমপির কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার, অতিরিক্ত ডিআইজি (প্রশাসন ও অর্থ) মাসুদুর রহমান ভূঞা, অতিরিক্ত ডিআইজি (অপরাধ ও অপারেশন্স) নিশারুল আরিফ, পুলিশ সুপার (এস্টেট ওয়েলফেয়ার) বেলায়েত হোসেন, রাজশাহীর পুলিশ সুপার মো. শহীদুল্লাহ, সিরাজগঞ্জের পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তীসহ বিভিন্ন জেলার পুলিশ সুপাররা।

বিকালে পুলিশ লাইনে আয়োজিত বার্ষিক পুলিশ সমাবেশ, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দেন আইজিপি।

এ জাতীয় আরো সংবাদ


ফেসবুকে আমরা

ফেসবুকে আমরা