,

উল্কার মতো আগমন ছাই হয়ে পতন!!

উল্কার মতো আগমন ছাই হয়ে পতন!!

সারা বাংলা ডেস্ক, বাংলা সময় টুয়েন্টিফোর ডটকম, ঢাকা অফিস : এক সময়ের আলোচিত দুই মডেল-অভিনেত্রী শখ ও সারিকাকে এখন আর মিডিয়ায় পাওয়া যায় না। না নাটকে না বিজ্ঞাপনে। নাট্যাঙ্গনের নির্মাতারা ধরেই নিয়েছেন তাদের অটোমেটিক বিদায় হয়ে গেছে। দু’জনের বিদায়ের বিভিন্ন কারণের মাধ্যে মিলও রয়েছে। প্রেম-বিয়ে, সংসার ভাঙা এবং বিভিন্ন বিতর্কিত কর্মকান্ড। বলা যায়, অভিনেতা নিলয়ের সঙ্গে বিয়ে এবং বিচ্ছেদই শখের বিদায় ঘন্টা বাজিয়ে দেয়। সংসার ভাঙ্গার পর শোবিজে ফিরলেও আগের সেই ইমেজ ধরে রাখতে পারেননি।

ফলে ধীরে ধীরে আড়ালে চলে যান। সাধারণত ঈদ এলে বিভিন্ন ধারাবাহিকসহ অনেক নাটকে শখকে অভিনয় করতে দেখা যায়। আসন্ন রোজার ঈদকে সামনে রেখে নাট্যাঙ্গণে পুরোদমে কাজ শুরু হলেও শখের কোনো খবর নেই। শখ কোথায় আছে, তাও অনেক নির্মাতা জানেন না। তার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায় না। তবে সম্প্রতি শখের খোঁজ দিয়েছেন তার মা। তার মা শাহিদা কবির একটি সংবাদ মাধ্যমকে শখের বর্তমান অবস্থা জানিয়ে বলেছেন, ভালোই আছে শখ। তবে শোবিজে ফিরতে পারবে কিনা, এ ব্যাপারে নিশ্চিত করে তিনি কিছু বলতে পারেননি।

যদিও তিনি বলেছেন, শখের শোবিজ ছেড়ে দেয়ার কোনো কারণ নেই। আমি অনেকদিন ধরেই অসুস্থ ছিলাম। আমার দেখাশোনা শখকেই করতে হয়েছে। খুব একটা বাইরে যাওয়ার সুযোগ হয়নি ওর। সেজন্যই দীর্ঘদিন শোবিজে বিরতি পড়ে গেছে। হয়তো দ্রæতই আবার অভিনয়ে ফিরবে। সেটা অবশ্য শখই ভালো বলতে পারবে। তবে এ কথা বাস্তব যে, শোবিজ থেকে একবার অবস্থান হারালে তা ফিরে পাওয়া কঠিন। নিজেদের অবস্থানের অবমূল্যায়ণ এবং খামখেয়ালি আচরণ শখ ও সারিকাকে ক্যারিয়ারের তুঙ্গে থাকা অবস্থানকে নড়বড়ে করে দেয়। তাদের আগমন ঘটে অনেকটা উল্কার মতো, পতন হয়েছে ছাইয়ের মতো।

শোবিজের পিচ্ছিল পথে বেখেয়ালি হয়ে দৌড়াতে গিয়ে তারা অতল হারিয়ে গেছেন। দর্শকপ্রিয়তা যে একটা উত্তাপ আছে, তা তারা বুঝতে পারেননি এবং সামালও দিতে পারেননি। ফলে যেমন খুশি তেমন চলেছেন। তার পরিণতি তারা এখন ভোগ করছেন। শোবিজে এর আগে এমন উল্কার মতো আবির্ভাব অনেকেরই হয়েছিল। আবার তাদের আচরণগত সমস্যার কারণে পরিণতিও হয়েছিল শোচনীয়।

এক সময় শ্রাবস্তী দত্ত তিন্নি মিডিয়ায় সে কী ঝড় তুলেছিলেন! সেই তিন্নি অল্প সময়ের মধ্যেই প্রেম-বিয়ে এবং নানা বিতর্কিত ঘটনার কারণে হারিয়ে যান। সেই পথে হেঁটেই শখ ও সারিকার একই পরিণতি হয়েছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ


ফেসবুকে আমরা

ফেসবুকে আমরা