,

আপনি যদি ঋণ রেখে মারা যান…. আখিরাতে নেকি থেকে ঋণ পরিশোধ করতে হবে আপনাকে !

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলা সময় ২৪ ডটকম : ,বিশেষ সংবাদদাতা:-মানব জীবনে বিভিন্ন প্রয়োজনে অন্যের নিকট ঋণ গ্রহণের প্রয়োজন দেখা দিতে পারে। তাই ঋণ গ্রহণ করা দোষণীয় নয়। ইসলামী শরিয়ত ঋণ পরিশোধের ক্ষেত্রে অত্যধিক গুরুত্বারোপ করা আছে । তবে যথাসম্ভব তাড়াতাড়ি তা পরিশোধ করে দায়িত্বমুক্ত হওয়ার চেষ্টা করা জরুরি। কেননা ঋণ বান্দার হক সংশ্লিষ্ট বিষয়। যার কারণে এর পরিণতি অত্যন্ত ভয়ানক।

#তাই রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ঋণ থেকে আল্লাহর নিকট পানাহ চাইতেন। যেমন হাদীসে এসেছে:
«اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِنَ الْهَمِّ وَالْحَزَنِ، وَالْعَجْزِ وَالْكَسَلِ، وَالْبُخْلِ وَالْجُبْنِ، وَضَلَعِ الدَّيْنِ وَغَلَبَةِ الرِّجَالِ»
অর্থ: “হে আল্লাহ! নিশ্চয় আমি আপনার আশ্রয় নিচ্ছি দুশ্চিন্তা ও দুঃখ থেকে, অপারগতা ও অলসতা থেকে, কৃপণতা ও ভীরুতা থেকে, ঋণের ভার ও মানুষদের দমন-পীড়ন থেকে।” [বুখারী, ৭/১৫৮, নং ২৮৯৩]

#এক সাহাবী মাত্র দু দিনার ঋণ রেখে মারা গেলে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার জানাযা পড়েন নি। পরে কাতাদা রা. তা পরিশোধ করা দায়িত্ব নিলে তিনি বললেন, الْآنَ بَرَدَتْ عَلَيْهِ جِلْدُهُ “এখন তার চামড়া ঠাণ্ডা হল।” (মুসনাদে আহমদ 3/629-ইমাম নওবী এ হাদীসের সনদটিকে হাসান বলেছেন)

#রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আরো বলেছেন:
نَفْسُ الْمُؤْمِنِ مُعَلَّقَةٌ بِدَيْنِهِ حَتَّى يُقْضَى عَنْهُ
“মুমিন ব্যক্তি আত্মা তার ঋণের সাথে আটকে থাকে যতক্ষণ না তা পরিশোধ করা হয়।” (তিরমিযী, হা/১০৭৪) অর্থাৎ ঋণ পরিশোধ হওয়ার আগ পর্যন্ত তার বিষয়টি আল্লাহ নিকট আটকে থাকে। তার মুক্তি অথবা ধ্বংস কোন ফয়সালা হয় না।

#কেউ যদি ঋণ রেখে মারা যায় তাহলে কিয়ামতের দিন তার নেকি থেকে তা পরিশোধ করা হবে। যেমন আব্দুল্লাহ ইবনে উমর রা. এক ব্যক্তিকে লক্ষ্য করে বললেন,
يا حمران ! اتق الله ولا تمت وعليك دين ، فيؤخذ من حسناتك ، لا دينار ثَمَّ ولا درهم
“হে হুমরান, আল্লাহকে ভয় করো, আর তোমার উপর ঋণ রেখে মৃত্যু বরণ করো না। অন্যথায় তোমার নেকি থেকে তা নেয়া হবে। কেননা, সে দিন কোন দিনার বা দিরহাম থাকবে না।”

সুতরাং কেউ যদি আপনার নিকট ঋণ হিসেবে অর্থকড়ি পায় (বা আপনি কারো নিকট পান) তাহলে তা লিখে রাখা উচিৎ এবং পরিবারের লোকদের সেটা জানা থাকা কতর্ব্য।

কেননা, আপনি যদি মৃত্যু বরণ করেন তাহলে যেন পরিবারের লোকরা তা পরিশোধ করতে পারে। অন্যথায় আখিরাতে আপনার নেকি থেকে ঋণ পরিশোধ করা হবে। আল্লাহ আমাদের সকল প্রকার ঋণ পরিশোধ করার তৌফিক দিন। আমিন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ


ফেসবুকে আমরা