,

কুমারখালীর ছেঁঊড়িয়ায় প্রতিহিংসার জের ধরে তরুনীকে বেধরক মারপিট

কুমারখালীর ছেঁঊড়িয়ায় প্রতিহিংসার জের ধরে তরুনীকে বেধরক মারপিট

নিজস্ব প্রতিবেদক:- গতকাল আনুমানিক দুপুর ৩ টার সময় কুমারখালী উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের ছেঁঊড়িয়া মন্ডলপাড়া চড় এলাকার মোঃ তিনু হোসেনের মেয়ে তিমা (১১) কে প্রতিহিংসার জের ধরে বেধরক মারপিট করেছে একই এলাকার রশিদ সেখের ছেলে হাবিব সেখ ও তার স্ত্রী মনো খাতুন এবং একই এলাকার পাশের বাড়ির মৃত ফজর সেখের ছেলে মন্টুর বৌ আরজিনা খাতুন।

জানা যায়, ছেঁঊড়িয়া মন্ডলপাড়া চড় এলাকার মোঃ তিনু হোসেনের স্ত্রী এলেনা খাতুন ও একই এলাকার পাশের বাড়ির হাবিব সেখের স্ত্রী মনো খাতুন দীর্ঘ দিন যাবত মুরগীর চামড়ার ব্যবসা করে আসছিলো এবং তারা দুজনেই মুরগীর চামড়া ক্র‍য় করতো মিনিসিপ্যাল বাজারের মুরগী ব্যবসায়ীক আসাদের কাছ থেকে। হঠাৎ করে গত ২-৩ দিন মুরগী ব্যবসায়ীক আসাদের কাছ থেকে সমস্ত চামড়া কিনে নেয় হাবিবের বৌ মনো খাতুন তাই আর চামড়া পায়না তিনু হোসেনের স্ত্রী এলেনা খাতুন। আর এ ব্যাপার নিয়ে তিনু সেখের স্ত্রী এলেনা খাতুন তার বাড়ির পাশের মুরগীর চামড়া ব্যবসায়ীক হাবিবের বৌ মনোর কাছে জিজ্ঞাসা করতে গেলে তাকে চর থাপ্পর মারে।

তারপর মনো খাতুন তার স্বামী হাবিব ও মন্টুর বৌ আরজিনা তিনুর স্ত্রীকে মারপিট শুরু করে। তিনুর স্ত্রীর শোর চিৎকার শুনে তিনুর ছোট মেয়ে তিমা (১১) বাড়ি থেকে দৌড়ে এসে তার মাকে মারের হাত থেকে রক্ষা করার চেষ্টা করলে মনো খাতুন তার স্বামী হাবিব ও মন্টুর বৌ আরজিনা খাতুন, তিমা(১১) কে লাঠী শোটা দিয়ে বেধরক মারপিট করে শুরু করলে এক পর্যায়ে নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে তিমা জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। বর্তমানে তিমা কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভর্তি রয়েছে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ


ফেসবুকে আমরা

ফেসবুকে আমরা